বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০২:৩৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
ফ্রান্সের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্নের আল্টিমেটাম দিলো হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ বাড্ডায় ইমাম ওলামা পরিষদ এর উদ্যোগে ফ্রান্স বিরোধী বিক্ষোভ মিছিল পণ্য বয়কট করে নবির অবমাননার প্রতিবাদ করার আহ্বান মাওলানা তারিক জামিলের.. ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে ০৮ অক্টোবর ২০২০ যাত্রাবাড়ী মদিনা মসজিদে চলবে তাবলীগের মারকাজের আমল। আজ থেকে (২৮/০৮/২০২০) চলবে শুরাই নেজামের অধীনে কাকরাইল মারকাজ মসজিদ কাকরাইল মসজিদে রুটি বানানোর মেশিনে আগুন যাত্রাবাড়ী মদিনা মসজিদে ১৪ থেকে ২৭ আগস্ট পর্যন্ত চলবে তাবলিগের মারকাজের কার্যক্রম মঈনুল ইসলাম মাদ্রাসায় হামলার বিচার ও বৈধ কর্তৃপক্ষের কাছে মাদ্রাসার দায়িত্ব হস্তান্তরের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন মধুপুর পীর আল্লামা আব্দুল হামিদ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সাদপন্থীদের হামলায় আহত মাদ্রাসার নিরিহ ছাত্র ও শিক্ষকগন
তাকে যেন থামানোই যাচ্ছে না !!!

তাকে যেন থামানোই যাচ্ছে না !!!

পোস্টটি লম্বা হলেও জরুরি।

চারবার লিখিত এবং দুইবার মৌখিক ভাবে নিজের ভুল স্বীকার করে,তওবা করে,এমন ভুল ভবিষ্যতে আর করবেন না বলে ওয়াদা করেন সারা পৃথিবীতে বিতর্কিত ভারতের মাওলানা সা’দ কান্ধলবি।এরপরেও লাগামহীন ভাবে একেরপর এক কোরআন হাদিছের সাথে সাংঘরষিক বয়ান করে উম্মতকে বিভ্রান্ত করেই চলছেন তিনি।কোনভাবেই যেন ওনাকে থামানো যাচ্ছে না।

এইখানে কিছু বয়ানের ভুল অংশটুকু ধারাবাহিক ভাবে আপলোড দেওয়া হল আর সম্পূর্ণ বয়ানের লিংক কমেন্টে দেওয়া হলঃ-

১। তাবলীগই মেহনতঃ-

৯.০১.২০১৭ তারিখে মাওলানা সা’দ দারুল উলুম দেওবন্দ বরাবর একটি চিঠিতে লিখেনঃ
“কিছু বয়ানের মাঝে আমি এমন কথা বলেছি,যার মাধ্যমে তাবলীগের শরঈ দায়িত্ব শুধুমাত্র একটি বিশেষ পদ্ধতির মাঝে সীমাবদ্ধ হয়ে পড়ে।বান্দা(সা’দ) তার থেকে তওবা করছে এবং সম্পৃক্তহীনতার সুস্পষ্ট ঘোষণা দিচ্ছে।”

এরপর ৩০.১০.২০১৮ তারিখ বয়ানে তিনি বলেনঃ
i.”এই পদ্ধতি(প্রচলিত তাবলীগ) মাসনুন(সুন্নাহ নির্দেশিত) এবং মানসুস(কোরআন হাদিছ থেকে সরাসরি নির্দেশিত)।সুন্নত থেকে প্রমাণিত এবং কোরআনের আয়াত গুলো থেকে এই পদ্ধিতিই পাওয়া যায়”

এরপর ১৮.১০.২০১৮ তারিখ বয়ানঃ
ii.”খোদার কসম যেভাবে মুহাম্মদ(সঃ) এর ইসতিনজার ,অযুর,মেসওয়াকের একেকটা সুন্নত কিয়ামত পর্যন্ত বদলাবে না।তদ্রুপ তার দাওয়াতের সুন্নতও কিয়ামত পর্যন্ত বদলাবে না”

এরপর ২৫.১১.২০১৮ তারিখ বয়ানঃ
iii.”এই মেহনত(তাবলিগ) এভাবে মাসনুন(সুন্নাহ নির্দেশিত) যেভাবে খাওয়া ও পান করা,বিয়ে শাদি,নামাজ ইবাদতের পদ্ধতি মাসনুন।এগুলো কিয়ামত পর্যন্ত বদলাবেনা।তদ্রুপ দাওয়াহ ইলাল্লাহ ও তার মেহনতের পদ্ধতিও কিয়ামত পর্যন্ত নির্ধারিত।কখনই বদলাবে না”

মন্তব্যঃমুফতি মাহমুদুল হাসান গঙ্গোহি(রহঃ) লিখেনঃ “দাওয়াত খুবই জরুরি।উম্মত এর প্রয়োজনিয়তা অনুভব করে।কিন্তু এরজন্য সবাই এক ও অভিন্ন পদ্ধতি গ্রহণ করেনি।উম্মত কখনও এর জন্য একটি পদ্ধতিকে সবার জন্য আবশ্যক অভিহিত করেনি”(ফতোয়ায়ে মাহমুদিয়া ৪/২১৪)

ফুল বয়ান লিংকঃ


সাইয়দ আবুল হাসান আলি মিয়া নদবি(রহঃ) লিখেনঃ “আল্লাহর দিকে ডাকা ফরয।….এরজন্য কোন পদ্ধতি নির্ধারিত নেই।…কাজেই সব জায়গায় বা সব ব্যক্তির উপর দাওয়াতের একটি ধরন নির্ধারিত করে কোরআন হাদিছ থেকে সরাসরি নির্দেশিত বিধানের মত চাপাচাপি করা কখনও ঠিক নয়”(তাবলিগে দ্বীন কে লিয়ে এক উসুল,খুতবাতে আলি মিয়া খন্ড-৫)
মুফতি সালমান মনসুরপুরি(দাঃবাঃ)লিখেনঃ দ্বীনের দাওয়াতের জন্য শরিয়ত কোন পদ্ধতি নির্ধারণ করে দেয়নি।প্রয়োজন ও যুগ চাহিদা অনুযায়ী দাওয়াতের পদ্ধতি ভিন্ন ভিন্ন হতে পারে”(মাসিক নিদায়ে শাহি ডিসেম্বর২০১৭)

২। ইসলামের সাহায্যে শুধুই দাওয়াতঃ-

i.”শুধু ইবাদতের দ্বারা আল্লাহর সাহায্যে পাওয়া যাবে না।ইবাদত দ্বীনের সাহায্যে নয়।মুসলমানদের উপর সম্পদ ব্যয় করা ইসলামের সাহায্যে নয়।মানুষ মনে করে বিধবা,ইয়াতিম,মিসকিন,মসজিদ নির্মাণ ইত্যাদিতে মাল খরচ করে ইসলামের সাহায্য করেছি।অথচ মাল খরচ করা ইসলামের সাহায্য নয়।…ইসলামের সাহায্যে হল দাওয়াত দেওয়া”

নাউযুবিল্লাহ।ওনি ওনার এইকথা বুঝানোর জন্য ৮.৭.১০১৮তারিখে ঘোয়া জোড়ে হুজুর(সঃ) এর আমলকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছেনঃ

ii”হুজুর(সঃ)অমুসলিমদের জন্য মাল খরচ করেছেন।একেক মুশরিককে শত শত উট দিয়েছেন।এক মুশরিককে একশ উঠ দেওয়ার কারণে কি ইসলামের সাহায্যে হবে?”(নাউযুবিল্লাহ)

মন্তব্যঃসাহাবা(রঃ)দের কত শত ঘটনা আছে ইবাদতের মাধ্যমে আল্লাহর সাহায্য পেয়েছেন।ইসলামের জন্য উসমান(রঃ) এর আর্থিক সাহায্যের কারণে খুশি হয়ে নব(সঃ) বলেছিলে আজকের পর থেকে উসমান যাই করুক তার কোন ক্ষতি হবে না।এখন কি নাউযুবিল্লাহ কেউ এই কথা বলবে যে,উসমান(রঃ) এর এই মাল ইসলামের সাহায্যে না?

৩। নামাজের পর ২য় সবচেয়ে বড় আমল মাশওয়ারঃ-

১৮.১২.২০১৭ বাদ মাগরিব বয়ানঃ

https://youtu.be/SEyqXVBar7Y?t=233
i.”ইমানদারদের জন্য সবচেয়ে বড় সম্মিলিত আমল নামাজ।এরপর ২য় সবচেয়ে বড় আমল হল মাশওয়ারা”
ii.”মাশওয়ারা ছেড়ে চলে যাওয়া যুদ্ধের ময়দান থেকে পালিয়ে যাওয়ার মত মারাত্বক অপরাধ।…আমার মতে মাশওয়ারা ছেড়ে চলে যাওয়া যুদ্ধের ময়দান থেকে পালিয়ে যাওয়ার চেয়েও মারাত্বক অপরাধ”
১০.৯.২০১৮ তারিখ বাদ মাগরিবঃ

https://youtu.be/-K0CN_I131A?t=39
iii.”জামাতবদ্ধ নামাজের যেই আদব,জামাতবদ্ধ মাশওয়ারার একই আদব।আপনি দেখুন নামাজের সব গুলো সিফাত ও বৈশিষ্ট মাশওয়ারার মাঝে রয়েছে”

মন্তব্যঃনাউযুবিল্লাহ।পরামর্শ একটি মুস্তাহাব আমল।দ্বীনের ব্যাপারে সরবোচ্চ সুন্নত বলা যেতে পারে। এমন একটা বিষয়ে কত বড় জঘন্য কথা।জিহাদের ময়দান থেকে পালিয়ে আসা কবিরা গোনাহ।অনেকের মতে তাদের শাস্তি কতল।আপনি বলবেন তাহলে মাশওয়ারা ছেড়ে চলে আসাও কবিরা গোনাহ।তার শাস্তিও কতল?জামাতবদ্ধ নামাজের জন্য অযু,ক্বিবলা মুখি হওয়া,কাতারবন্দি হওয়া ইত্যাদি বৈশিষ্ট।তাহলে মাশওয়ারার জন্যও কি এইসব জরুরি?(নাউযুবিল্লাহ)

৪। সালেহিনরা অর্থাৎ পীর মাশায়েখ/সুফি-রা দ্বীনের মেহনত কারী নয়ঃ

১৭.১২.২০১৭ বাদ ফজর বয়ানঃ”আল্লাহর সাহায্যের সুসংবাদ দেওয়া হচ্ছে দাওয়াতের শর্ত সাপেক্ষে।সালেহিনরা শুধু দ্বীনের পথিক দ্বীনদার,দ্বীনের সাহায্যেকারী নয়।তাদের মেহনতের দ্বারা কারামত প্রকাশ পাবে দ্বীনের সাহায্যে হবে না”

মন্তব্যঃকোরআনের কতবড় অপব্যাখ্যা।হাজার বছর ধরে পীর মাশায়েখ/সুফি-রা মেহনতের মাধ্যমে ইসলামের প্রচার করেছেন এবং টিকিয়ে রেখেছেন।আর ওনাদেরকে অপবাদ দেওয়া হচ্ছে।

৫। দ্বীনের মেহনতে পুরুষ মহিলার একই দায়িত্বঃ-

২.১২.২০১৮ বাদ মাগরিব বয়ানঃ
i.”এই মেহনত আঞ্জাম দেওয়ার যে দায়িত্ব পুরুষের খোদার কসম হুবহু কোন পার্থক্য ব্যতিরেখে একই জিম্মাদারি মহিলাদের”
২৬.০৬.২০১৮ বাদ ফজরঃ
ii.”আমার মতে,আল্লাহর কসম পুরুষের যে দায়িত্ব অবিকল একই দায়িত্ব মহিলাদের।কোন পার্থক্য নেই”

মন্তব্যঃনাউযুবিল্লাহ।সরাসরি শরিয়তের মৌলিক বিষয়ের বিক্রিতি।দ্বীনের মেহনতের ব্যাপারে প্রায়৮০-৯০ ভাগ ক্ষেত্রে পুরুষের ছেয়ে মহিলার দায়িত্ব কম এই কথা নামে মাত্র মুসলমানও বুঝে।

৬।নবীর থেকে উম্মত বড়ঃ-

“এখলাছের সাথে কাম করতে থাক,আল্লাহ তোমাদের থেকে এমন কাম নিবেন যেমন নবীদের থেকেও নেন নাই”

মন্তব্যঃনাউযুবিল্লাহ।কোন মদখোর মুসলমানও কি এই কথা বিশ্বাস করবে?

৭। ইহুদিদের তরিকাঃ-

১.১২.২০১৮ বাদ মাগরিব বয়ানঃ”একই দস্তরখানে ভিন্ন ভিন্ন প্লেটে খাওয়া ইহুদিদের তরিকা”

মন্তব্যঃতাহলে কি দুনিয়ার সমস্ত ওলামায়েকেরাম ইহুদিদের তরিকায় খাচ্ছে?

৮। নামাজ মসজিদের গৌণ/প্রাসংগিক আমলঃ-

৩০.১০.২০১৮ বাদ ফজর বয়ানঃ”নামাজ মসজিদের একটি প্রাসংগিক আমল।আমার এই কথা বুঝতে বেশ কষ্ট হবে।নামাজ মসজিদের শাখা আমল মাত্র।নামাজ মসজিদের অধিনস্থ আমল মাত্র”

মন্তব্যঃনাউযুবিল্লাহ।কোন নামে মত্র মুসলমানও এইকথা জানে মসজিদ বানানোই হয় নামাজের জন্য দাওয়াতের জন্য নয়।

FULL বয়ানের লিংকঃ-৩০.১০.২০১৮ https://youtu.be/Id0U_nYoCmo?t=35

৯। ১৮.১২.২০১৭ বাদ মাগরিবঃ
“নিজাম উদ্দিন কেয়ামত পর্যন্ত মারকাজ”

মন্তব্যঃনিজামউদ্দিনের ব্যাপারে মাওলানার এই দাবি নিঃসন্দেহে সীমালঙ্গন।গায়েবের ইলম একমাত্রয়াল্লাহই জানেন।(মুফতি সালমান মনসুরপুরি।মাসিক নিদায়ে শাহি-১২.২০১৭)

১০।হুজুর(সঃ) কষ্ট পেয়েছেনঃ-

২৫.০২.২০১৮ ব্যানঃ”হুজুর(সঃ) যনব(রাঃ) বিয়েতে গোশত রুটির আয়োজন করেন।নবিজি (সঃ) তার যে বিয়েতে নিয়মিত আমল থেকে সরে গেছেন সেই বিয়েতে তিনি কষ্ট পেয়েছেন”

মন্তব্যঃনাউযুবিল্লাহ।প্রিয় নবীর উপর মিত্যাবাদ এবং অপবাদ।

এইখানে নমুনা স্বরূপ কয়েকটা উল্লেখ করা হল।এইরকম বহুত বয়ান আছে যে গুলোর মাধ্যমে তিনি উম্মতকে গোমরাহ করতেছেন।

হে প্রিয় ভাইএরপরেও কি বলবেন সা’দ সাহেবকে আমির মানা জায়েজ?

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আর-রাহা সেবাই আমাদের ধর্ম।

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস

সর্বমোট

আক্রান্ত
৪৫০,৬৪৩
সুস্থ
৩৬৪,৯১৬
মৃত্যু
৬,৪২০
সূত্র: আইইডিসিআর

সর্বশেষ

আক্রান্ত
২,২৩০
সুস্থ
২,২২৬
মৃত্যু
৩২
স্পন্সর: একতা হোস্ট



©Copyright 2020 Sathivai.com
Desing & Developed BY sayem mahamud